Tuesday, July 8, 2014

ব্রাজিল না জার্মানি কে জিতবে:নয়াদিগন্ত

বেলো হরিজন্তে ব্রাজিলের মেট্রোপলিটন শহর। নৈগর্সিক সৌর্ন্দয্য ও খনিজসম্পদের জন্য অঞ্চলটি সারা বিশ্বের কাছেই পরিচিত। তবে ব্রাজিলিয়ানদের সাথে বেলো হরিজন্তের রয়েছে অন্য ‘এক নিগূঢ়’ সম্পর্ক। আত্মার সম্পর্ক। প্রাণশক্তি সঞ্চারণের সম্পর্ক। জয়ের অদম্য বাসনা সৃষ্টির সম্পর্ক। বেলো হরিজন্তে স্বাধীন ব্রাজিল প্রতিষ্ঠার অন্যতম তীর্থভূতি। নগরীর প্রাণকেন্দ্র থেকে দুই ঘণ্টার দূরত্বের আওয়ারো প্রেতুতে দেশটির স্বাধীনতা
সংগ্রামের অন্যতম নায়ক হোসে দ্য সিলভা হ্যাভিয়েরকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়। পেশায় দাঁতের ডাক্তার হওয়ায় তিনি সবার মাঝে পরিচিত ছিলেন ‘টুথ পুলার’ নামে। পরে সাধারণ সৈনিক থেকে পরিণত হন স্বাধীনতার অন্যতম সংগঠক হিসেবে। ১৮৮২ সালে ব্রাজিল স্বাধীনতা লাভ করার করার পর থেকেই জাতীয় বীরের মর্যাদায় ভূষিত হন হ্যাভিয়ের। শত বছরেরও বেশি সময় পর ওই বেলো হরিজন্তেই ‘নতুন বীর’ অভ্যুদয়ের অপেক্ষায় ২০০ মিলিয়ন ব্রাজিলিয়ান। প্রধান সেনাপতি ছাড়া আজ তাদের নামতে হচ্ছে যুদ্ধের ময়দানে। পেছনে ফেরার কোনো উপায়ও নেই। ফলে হাল কাউকে না কাউকে ধরতেই হবে। কে হবেন দেশটির একুশ শতকের ত্রাণকর্তা, তা-ই এখন দেখার বিষয়। ফুটবলপাগল ব্রাজিলিয়ানরা এখন দাঁড়িয়ে কঠিন সময়ের মাঝে। যাকে কেন্দ্র তারা দেশের মাটিতে বিশ্বজয়ের স্বপ্ন দেখলেন, তাকে ছাড়াই যুদ্ধ জয়ে নামতে হচ্ছে মাঠে। নেইমারবিহীন ব্রাজিল আজ বিশ্বকাপের প্রথম সেমিফাইনালে মুখোমুখি হচ্ছে বৈশ্বিক ফুটবলের অন্যতম এলিট দল জার্মানির। এ লড়াইকে অনেকেই দেখছেন ফাইনালের আগের ফাইনাল হিসেবে। কারণও তো রয়েছে। দল দু’টির দখলেই রয়েছে আটটি বিশ্বকাপ শিরোপা। তারা মিলিতভাবে সেমিফাইনাল খেলেছে ২৪ বার। তবে অবাক করার বিষয় হচ্ছে, বিশ্বকাপে এ নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো ব্রাজিল-জার্মানি মুখোমুখি হচ্ছে! ২০০২ সালের জাপান-কোরিয়া বিশ্বকাপের ফাইনালে জার্মানিকে হারিয়ে রেকর্ড পঞ্চম শিরোপা জয় করে ব্রাজিল। এবার তাদের দেশেই বসেছে বিশ্বকাপ। স্বাগতিকদের শিরোপা জয় ছাড়া কিছুই চিন্তাও করতে পারছে না দেশটির জনগণ। এবং তাদের ফুটবলারও ছিলেন প্রত্যাশিত গন্তব্যের পথে। কিন্তু কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিলের তারকা ফুটবলার নেইমারের ইনজুরি সব ওলট-পালট করে দিয়েছে। নিতম্বের ইনজুরি নিয়ে টুর্নামেন্ট থেকেই ছিটকে পড়েছেন বার্সেলোনা স্ট্রাইকার। তার অবর্তমানে ব্রাজিল বিশ্বকাপ জয় করতে পারবেÑ এমন মতের পক্ষে বাজি ধরার লোক খুবই নগণ্য। এর ওপর, সেমিতেই তাদের খেলতে হচ্ছে বিশ্বকাপ ইতিহাসের অন্যতম সেরা দল জার্মানির। এ কারণে খোদ ব্রাজিলিয়ানও আছেন চরম টেনশনে। কেউ কেউ প্রার্থনায় বসে গেছেন। অনেকেই আবার বেলো হরিজন্তের অতীত থেকে প্রেরণা নিচ্ছেন। কামনা করছেন নতুন বীর অভ্যুদয়ের। ধারাবাহিকভাবে নৈপুণ্য দেখিয়েই টুর্নামেন্টের সেমিতে উঠল জার্মানি। দারুণ একটি ভারসাম্যপূর্ণ দলও তাদের ভাণ্ডারে রয়েছে। অভিজ্ঞতা ও তারুণ্যের মিশেলের দুর্দান্ত জার্মানরা সেমিতে ফেবারিট হিসেবেই মাঠে নামবে। অসম্ভব প্রতিভাবান কয়েকজন অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার আছেন ইউরোপের দলটিতে। তাদের রক্ষণভাগও দারুণ সমৃদ্ধ। অধিনায়ক ফিলিপ লাম অত্যন্ত পরিশ্রম করে খেলেন। রক্ষণভাগের ফুটবলার হয়েও ম্যাট হুমেলস ইতোমধ্যেই ২ গোল করেছেন। প্রথম ম্যাচে হ্যাটট্রিক করা টমাস মুলার নেতৃত্ব দেন জার্মানির আক্রমণ ভাগের। তার সারথী হিসেবে আছেন বর্ষীয়ান কোসা। মারিও গোটজে ও টনি ক্রুসও গোল করতে পারেন। দলটির মধ্যমাঠের প্রাণভোমরা বাস্তেন শোয়াইন্সটাইগারও পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠেছেন সেমিফাইনাল ম্যাচের আগে। সব মিলিয়ে, আজ জার্মানিই ফেবারিট হিসেবে মাঠে নামবে। নেইমারের পাশাপাশি সাসপেনশন খাড়ায় থাকা নিয়মিত অধিনায়ক থিয়াগো সিলভাও জার্মানদের বিপক্ষেও খেলতে পারছেন না। ফলে প্রথম পছন্দের একাদশও গঠন করা সম্ভব হবে না সোলারির পক্ষে। নেইমারের পরিবর্তে একাদশে ঢুকতে পারেন চেলসির মিডফিল্ডার উইলিয়ান। কাব ফুটবলে অস্কারের সাথে জুটি বেঁধে খেলার অভিজ্ঞতা ছোটখাটো গড়নের এই মিডফিল্ডারের রয়েছে। সাসপেনশনের খাড়ায় কলম্বিয়ার বিপক্ষে না পারা লুইস গুস্তাভোর প্রত্যাবর্তন ব্রাজিলের মধ্যমাঠের সমস্যা কিছুটা হলেও দূর করবে। রক্ষণভাগে বায়ার্ন মিউনিখের দান্তে ও বার্সেলোনার দানি অ্যালভেজ অন্তর্ভুক্ত হতে পারেন আজকের ম্যাচে। শক্তিশালী প্রতিপক্ষ জার্মানি। এর ওপর দুই অপরিহার্য ফুটবলার নেই দলে। তবুও জয়ের ব্যাপারে দারুণ আত্মবিশ্বাসী ব্রাজিল। দলটির মিডফিল্ডার অস্কার বলেন, ‘নেইমারের শূন্যস্থান পূরণ করা সম্ভব নয়। তবে যিনি সুযোগ পাবেন, জার্মানিকে হারানোয় অবদান রাখার যোগ্যতা রয়েছে তারও রয়েছে। আমরা দল হিসেবেই খেলব। এবং ফাইনালেও উঠতে পারব।’